করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও ইতালীতে এক প্রবাসী বাংলাদেশী নিজের মেয়েকে হত্যার দায়ে অভিযুক্ত। ইতালীর আরেজ্জো প্রভিন্সের লেভান ভালদারনো এলাকায় এক বাংলাদশি ৪ বছরের শিশু কন্যাকে খুন করেছে বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ।

স্থানীয়রা জানায় মঙ্গলবার সকালে ৪ বছরের শিশু কন্যাকে রান্না ঘরের ছুরি দিয়ে গলা কেঁটে হত্যা করে পাষণ্ড বাবা। এসময় ১২ বছরের ছেলেকেও মাথায় প্রচন্ড আঘাত করে হত্যার চেষ্টা করে। আহত ছেলে দৌড়ে পাশের বাংলাদেশি এক বাসায় আশ্রয় নেয়। এ ঘটনা দেখে তাদের প্রতিবেশি একজন পুলিশকে ফোন করে।

এক পর্যায়ে পাষণ্ড ৩৯ বছর বয়সী বাংলাদেশী আত্মহত্যার চেষ্টা করলে ইতালীর দমকলবাহিনী ও ক্যারাবিন্যারি (সামরিক বাহিনীর একটি ইউনিট) তাদের উদ্ধার করে।

গুরতর আহত বাবা ও ছেলেকে সাথে সাথে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বাবা এবং ছেলে দুজনেই স্থানীয় সান মারিয়া ডেল গুরসিয়া হাসপাতালে কোমায় আছে। এ ঘটনার সময় সন্তানদের মা বাজার করতে যাওয়ায় বাসার বাইরে ছিলেন ।ধারনা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহের জের ধরে এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে।পুলিশ অভিযুক্ত অপরাধীর পরিচয় এখনো প্রকাশ করেনি।

উল্লেখ্য যে ইতালিতে এসব অভিযোগের ক্ষেত্রে পুলিশ ভিকটিম ও অভিযুক্তদের পরিচয় ঘটনার তদন্ত কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত প্রকাশ করে না।

সঞ্জয় দে
মিলান, ইতালী