ইসলামী সম্মেলন সংস্থা (ওআইসি) আজ বৃহষ্পতিবার মিয়ানমারে ভয়াবহ সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা মুসলিমদের ইস্যুটি জাতিসংঘে উত্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সৌদি আরবের পবিত্র মক্কা নগরীতে অনুষ্ঠিত ওআইসির শীর্ষ সম্মেলনের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের অব্যাহতভাবে সহিংসতা অবলম্বন এবং তাদের নাগরিকত্বের অধিকারকে স্বীকৃতি দিতে অস্বীকৃতির নিন্দা জানানো হয়।

শীর্ষ সম্মেলনের এক চূড়ান্ত বিবৃতিতে বলা হয়, এই সম্মেলন ও বিষয়টি জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সামনে উত্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।শীর্ষ সম্মেলনের আগে শনিবার ওআইসি ঘোষণা দেয় যে সংস্থা বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের সহায়তার ব্যাপারে মায়ানমারের সবুজ সংকেত পেয়েছে।সংস্থা জানায়, রাখাইন প্রদেশে শোচনীয় মানবিক পরিস্থিতি নিয়ে গত শুক্রবার রাজধানী ইয়াঙ্গুনে প্রেসিডেন্ট থেইন সেইনের সঙ্গে সংস্থার একটি প্রতিনিধি দলের বৈঠকের পর মায়ানমার এ সম্মতি দেয়।

প্রতিনিধি দল থেইন সেইনকে আশ্বস্ত করে যে সংস্থা দাঙ্গা কবলিত রাখাইন প্রদেশের সকল বাসিন্দাকে সহায়তা করতে ইচ্ছুক।সৌদি বার্তা সংস্থা এসপিএ জানায়, গত শনিবার সৌদি বাদশাহ আবদুল্লাহ রোহিঙ্গাদের জাতিগত নির্মূল অভিযান, হত্যা, ধর্ষণ ও জোরপূর্বক বাড়িঘর থেকে বিতারিত করাসহ নানাবিধ মানবাধিকার লঙ্ঘনের শিকার বর্ণনা করে তাদের জন্য পাঁচ কোটি মার্কিন ডলার অনুদান দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

অনলাইন ডেস্ক