মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গা মুসলিম শরণার্থীদের জন্যে ত্রাণ দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে তুরস্ক। তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান অন্যান্য মুসলিম দেশের প্রতি মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলিমদের পাশে দাঁড়ানোর আহবান জানিয়েছেন। এদিকে মিয়ানমারে উগ্র বৌদ্ধদের রোহিঙ্গা মুসলমান বিরোধী দাঙ্গায় নতুন করে আরো তিনজন নিহত হয়েছে।

রাখাইন প্রদেশের রাজধানী সিত্তু থেকে ১০০ কিলোমিটার উত্তরে কাইআউতাওতে রোববার নতুন করে এ সহিংসতার ঘটনা ঘটে। মিয়ানমার সরকারের পক্ষ থেকে পরিস্থিতি শান্ত থাকার দাবি করা হলেও পরিস্থিতি ভিন্ন বলে জানা গেছে।

সম্প্রতি, মিয়ানমারে বৌদ্ধদের মুসলিম-বিরোধী দাঙ্গায় এ পর্যন্ত কমপক্ষে ৬৫০ জন রোহিঙ্গা মুসলমান নিহত ও ১২০০ ব্যক্তি নিখোঁজ হয়েছেন বলে বিভিন্ন খবরে জানা গেছে। এছাড়া মিয়ানমারের আইক্যাপ এলাকায় মাত্র তিনটি মুসলিম অধ্যুষিত গ্রাম ছাড়া অবশিষ্ট সব গ্রাম জ্বালিয়ে দেয়ার পর ঘর-বাড়ি বুলডোজার দিয়ে নিশ্চিহ্ন করে দেয়া হয়েছে। মিয়ানমারের সেনাবাহিনী, নাসাকা এবং মগ বৌদ্ধরা মুসলমানদের হত্যার পর বৌদ্ধদের চিতার স্থানে নিয়ে গণকবর দিচ্ছে এমন অভিযোগ উঠেছে।

এদিকে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান মিয়ানমারে মুসলমানদের হত্যাযজ্ঞ বন্ধসহ তাদের নিরাপদ আশ্রয়, খাবার ও চিকিৎসা দেয়ার আহবান জানিয়েছেন।এক বিবৃতিতে এরদোগান বলেন, হাজার হাজার রোহিঙ্গা মুসলমান ক্ষুধায় কাতর হয়ে আছে। তারা রোগে শোকে ভুগছে। তাদের জীবন বিপন্ন হয়ে পড়েছে।তুরস্কের পক্ষ থেকে রোহিঙ্গা মুসলমানদের সম্ভাব্য সবধরণের সাহায্য দেয়ার আশ্বাস দিয়ে এরদোগান বলেন, খুব শীঘ্রই ত্রাণ সাহায্য রাখাইন প্রদেশে নির্যাতিতদের মধ্যে বিতরণ করা হবে।এজন্যে তুরস্কের সাধারণ মানুষের কাছে ত্রাণ সাহায্য সংগ্রহের জন্যে দেশটির দূর্যোগ ও জরুরি ব্যবস্থাপনা সংস্থাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার কাছে তুরস্কের সরকার আবেদন জানিয়েছে রোহিঙ্গা মুসলমানদের পাশে এসে দাঁড়াবার।

এদিকে জেদ্দায় ওআইসি রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর নির্যাতন বন্ধের জন্যে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে আহবান জানিয়েছে।ওআইসির মহাসচিব একমেলেদ্দিন ইহসানোগ্লু বলেছেন, এটা পরিস্কার রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর হত্যাযজ্ঞ ও নির্যাতন চললেও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় নিন্দা জানাতে ব্যর্থ হয়েছে।তিনি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে রোহিঙ্গা মুসলমানদের নাগরিকত্ব কেড়ে নেয়ার মত ঘৃণ্য সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ার আহবান জানান। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের উচিত মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর যে নির্যাতন চলছে তা সরেজমিনে দেখে আসা।এদিকে মিয়ানমারে তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মুরাত ইয়াভুজ আতেস রাখাইন প্রদেশ পরিদর্শন করেছেন। এসময় তার সাথে অন্যান্য দেশের রাষ্ট্রদূতরা ছিলেন।

অনলাইন ডেস্ক