৯ই আগস্ট, ২০১২ দিনটি আয়ারল্যান্ড এর ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লিখা থাকবে৷ লন্ডনের এক্সসেল এরিনায় অলিম্পিক প্রমিলা লাইট ওয়েট বক্সিং চ্যাম্পিয়নের নাম ঘোষণার সাথে সাথে সারা আয়ারল্যান্ড আনন্দে আত্মহারা হয়ে যায়৷

আয়ারল্যান্ডের ছোট্র শহর উইক্লোর মেয়ে কেটি টেইলর রাশিয়ার সোফিয়া ওচিগাভাকে হারিয়ে জিতে নিয়েছে অলিম্পিক স্বর্ণ পদক৷ প্রথম দুই রাউন্ডে পিছিয়ে থেকেও কেটি ১০-৮ পয়েন্টের ব্যবধানে সোফিয়া ওচিগাভাকে হারান৷ খেলা শেষে অত্যন্ত ধার্মিক কেটি টেইলর ধন্যবাদ জানান তার প্রভু জিসাসকে৷ তিনি মনে করেন শুধুমাত্র জিসাসের কৃপায় তিনি আজ সাফল্যের সর্বোচ্চ শিখায় পৌছতে পেরেছেন৷ তিনি সোফিয়া ওচিগাভারও প্রশংসা করেন একটি সুন্দর প্রতিদ্বন্দিতাপূর্ণ খেলার জন্য৷ অলিম্পিকের আগে কেটি চারবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ও পাঁচবার ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার দুর্লভ কৃতিত্ব অর্জন করেন৷ কেটিকে ঘিরে তাই আয়ারল্যান্ডবাসীর অলিম্পিক জয়ের স্বপ্ন তৈরী হয়েছিল৷ সে স্বপ্ন আজ বাস্তবে রূপায়িত হলো৷ আর সে জন্যই আয়ারল্যান্ড জুড়ে এত আনন্দের বন্যা৷ কেটি আজ শুধু আয়ারল্যান্ডের তারকা নন৷ তিনি আজ সারা বিশ্বের তারকা৷ সারা পৃথিবীর ক্রীড়ামোদী জনতার মুখে মুখে আজ একটি নাম৷ আর সেটি হচ্ছে কেটি টেইলর৷ বিশেষকরে প্রমিলা বক্সারদের জন্য অনাদিকাল পর্যন্ত তিনি বিশাল অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবেন৷ কেটি টেইলর আয়ারল্যান্ডের লেজেন্ড৷ সেজন্য তার ভক্তদের অনেকে মনে করছেন তার নামানুসারে তার জন্মস্থান 'ব্রে' এর নাম পরিবর্তন করে 'টেইলর্স টাউন' করা উচিত৷

মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন – সম্পাদক