মিনিষ্টার ফর সোশ্যাল প্রোটেকশন মন্ত্রী রেজিনা ডহার্টি গতকাল বৃহস্পতিবার সংসদে বলেছেন যে, আগামী সপ্তাহে কোভিড-১৯ বেকার ভাতায় পরিবর্তন আসছে। তিনি বলেন, সরকার বেকারভাতা প্রদানের পদ্ধতিগত খুটিনাটি দিকগুলো গভীরভাবে পর্যবেক্ষন করছে।

মিসেস ডহার্টি কভিড-১৯ বেকার ভাতা ও বেতন সহায়তা কার্যক্রম চালিয়ে যওয়ার কথা পুনর্ব্যক্ত করেন। নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বেই অর্থাৎ জুনের ৮ তারিখের মধ্যেই এই কার্যক্রমের সময়সীমা বাড়ানো হবে। এই বছর সোশ্যাল প্রটেকশনের অতিরিক্ত ব্যায়ভার নির্বাহ করার জন্য সংসদে কোন ভোটাভোটি ছাড়াই ২৮ বিলিয়ন ইউরোর বর্ধিত বাজেটের অর্থ ছাড় দেয়া হয়। সোশ্যাল প্রটেকশন মন্ত্রী বলেন সরকার যদি এই অতিরিক্ত ২৮ বিলিয়ন ইউরো ছাড় না দিতেন তাহলে আগামী সপ্তাহ থেকে আমরা কাউকে কভিড-১৯ বেকার ভাতা প্রদান করতে পারতাম না।

অর্থমন্ত্রী প্যাসক্যাল ডুনুহো, বলেন বছরের শেষের দিকে সোশ্যাল প্রটেকশন ও এমপ্লয়মেন্ট মন্ত্রণালয়ের জন্য প্রয়োজনীয় আরও অর্থ বরাদ্দ দেয়া হবে। অর্থমন্ত্রী আরও বলেন কভিড-১৯ ভাতা প্রদানের ক্ষেত্রে কিছু বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে যেমন, যেসব মায়েরা মাতৃত্বজনিত ছুটিতে ছিলেন তাদের ছুটির সময়সীমা এই জুনে শেষ হচ্ছে, তাদেরকে সহায়তা ভাতার আওতায় নিয়ে আসার জন্য আমরা বিভিন্ন দিক খতিয়ে দেখছি। ফিনাফলের টিডি জনাব উইলী সরকারের উদ্দ্যেশে প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে বলেন, কভিড-১৯ মহামারী ভাতা কতদিন চলবে তা সংসদের সকল টিডিদের অবগত না করে অর্থ ছাড় দেয়া কতটুকু যুক্তিযুক্ত? লেবার টিডি গিড নাসও একই প্রশ্ন করেছেন।

ওবায়দুর রহমান রুহেল
বার্তা সম্পাদক