জাপান সরকারর পক্ষে গতকাল ০৩ এপ্রিল ২০২০ ঘোষনা দেয়া হয়েছে যে flue এর ঔষধ এভিগান বিনামুল্যে আক্রান্ত দেশগুলিতে সরবরাহ করবে। মুখ্য কেবিনেট সচিব ইউশিহিডে সুগা গতকাল এক সাংবাদিক সম্মেলনে জানান যে ৩০টি আক্রান্ত দেশের পক্ষ থেকে কুটনৈতিক মাধ্যমে এই ঔষধ চাওয়া হয়েছে।

আমরা বিনা মুল্যে এই ওষধ সরবারাহের ব্যবস্থা নিচ্ছি। তিনি আশবাদ ব্যক্ত করেন যে এর মাধ্যমে এই ঔষধের কার্যকারিতা বাড়ানোর ক্লিনিক্যাল গবেষনার ক্ষেত্র আরো জোরদার হবে। উল্লেখ্য জাপানে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত ২৬১৭, গোটা পৃথিবীর তুলনায় অনেক কম এজন্য এখানে গবেষনার সুযোগ কম।

ইন্দোনেশিয়া ২০ লক্ষ্য ডোজ আদেশ দিয়েছে এবং এই ঔষধ এসে পৌছলে তারা ক্লিনিক্যাল রিসার্চ শুরু করবে। এই দেশে বর্তমানে আক্রান্ত ১৯৮৬, প্রথম দিকে পর পর বেশ কয়েক সপ্তাহ নতুন আক্রান্ত পাওয়া না গেলেও এখন আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। এখানে মৃতের সংখ্যা ১৮১, তারা দক্ষিন কোরিয়া কে ছাড়িয়ে গেছে এবং এশিয়ায় দ্বীতিয় স্থানে অবস্থান করছে।

জাপান তুরস্ক থেকেও এই ঔষধের জন্য অনুরোধ পেয়েছে। তুরস্কের স্বাস্থমন্ত্রী আংকারায় নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদুতের সঙ্গে দেখা করে এঈ ঔষদের সরবরাহ পাবার ব্যাপ্রে জাপানকে অনুরোধ করেন। তুরস্কের স্বাস্থমন্ত্রী বিগত ২৩শে মার্ছ জানিয়েছিলেন যে তারা চায়না থেকে পাওয়া একটি ঔষধ কোভিড-১ এর চিকিতসায় ব্যবহার করছেন, যদিও তিনি সে সময় এই ঔষধের নাম বলেন নি কিনতি তুরস্কের ডাক্তার এবং সংবাদ মাধ্যম সুত্রে জানা গেছে যে এই ঔষধ টি হচ্ছে favipiravir, যেটি এভিগানের জেনেরিক নাম। তুরস্কে গতকাল পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২০,৯২১ এবং মৃতের সংখ্যা ছিল ৪২৫।

আমেরিকায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিস্তার জন্য এভিগান ব্যবহারের সম্ভাব্যতা নিতে জাপান ট্রাম্প প্রশাসনের সাথে আলাপ করেছে, যদিও আমেরিকা তাতক্ষনিক ভাবে এই ঔষধ ব্যবাওহেরে ব্যাপারে কিছু জানাইনি। জার্মানী সংবাদ মাধ্যমে এসেছে যে তারা এই কয়েক লক্ষ ডোজ এই ঔষধ কিনবে এবং সেনাবাহিনির মাধ্যেমে বিভিন্ন হাসপাতালে এটা সরবরাহ করবে।

জাপানের ফুজিফিল্ম হোল্ডিং মালিকানাধীন একটি কোম্পানি এই ঔষধ প্রস্তুত করে এবং চায়নাতে কোভিড১৯ এর চিকিতসায় (ক্লিনিক্যাল টেস্টিং) এটাকে ফলদায়ক পাওয়া গেছে। জাপানের প্রধানমন্ত্রী আবে এটাকে জাপানে করোনা ভাইরাসের চিকিতসার জন্য অনুমোদন দেন। তিনি সংসদে আরো জানান যে জনগনের উতকন্ঠা দূর করার জন্য ফলদায়ক ঔষধ এবং টীকা তৈরীর জন্য জাপান আরো দ্রুত গতিতে কাজ করে যাবে।

এই সপ্তাহে ফুজিফিল্ম ঘোষনা দেয় যে তারা এভিগানের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু করেছেন এবং দ্রুত তারা উদপাদন বৃদ্ধি করবেন। জাপান সরকার ২০ লক্ষ ডোজ নিজ দেশের জন্য প্রস্তত রেখেছেন। জাপানের প্রধানমন্ত্রী আরো জানান যে জাপান আমেরিকা ও আরো কিছু দেশের সাথে আন্তর্জাতিক গবেষনায় যুক্ত আছে যেখানে তারা remdesivir (যা ইবোলা চিকিতসায় ব্যবহৃত হয়) কে করোনা ভাইরাসের চিকিতসায় ব্যবহার করা যায় কিনা সেটা নিয়ে কাজ হচ্ছে। এই মাসেই এটার ট্রায়াল শুরু হবে বলেও তিনি জানান।

শরিফ নজমুল (somewhereinblog.net)