ভারতের এক সমীক্ষায় বলা হয়েছে, গরুর দুধ শিশুর জন্য মোটেও উপযুক্ত নয়; এতে মানব শিশুর জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদানের ঘাটতি রয়েছে। গরুর দুধ শিশুকে প্রয়োজনীয় পুষ্টি যোগায় না এবং এতে রয়েছে উচ্চ মাত্রার আমিষ বা প্রোটিন- যা শিশুর অপরিপক্ক কিডনির জন্য অনুপযুক্ত।

অল ইন্ডিয়া ইন্সটিটিউট অব হাইজিন অ্যান্ড পাব্লিক হেলথের বায়োক্যামেস্টি অ্যান্ড নিউট্রিশন বিভাগের প্রধান দেবনাথ চৌধুরি এ কথা জানান।

তার এ কথার প্রতিধ্বনি পাওয়া যায় ভারতের ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব নিউট্রিশন-এর পরিচালক বি শশীকর্ণের কথায়। তিনি বলেন, গরুর দুধে মানব শিশুর জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদানের ঘাটতি রয়েছে এবং এতে লৌহও আছে কম মাত্রায়।

ভারতসহ পৃথিবীর বহু দেশে শিশুকে গরুর দুধ খাওয়ানোর প্রচলন রয়েছে হাজার বছর ধরে। সে কথা উল্লেখ করে বি শশীকর্ণ বলেন, বর্তমান প্রেক্ষাপটে গরুর দুধ শিশুর জন্য নিরাপদও নয়; এতে উঁচু মাত্রার অ্যান্টিবায়োটিকস এবং কীটনাশকের উপস্থিতি রয়েছে। সব মিলিয়ে মানব শিশুকে জন্মের প্রথম বছর গরুর দুধ দেয়া মোটেও বাঞ্চনীয় নয়। এ দুধ শিশুর জন্য মোটেও নিরাপদ বা উপযুক্ত নয় এবং পুষ্টি উপাদানের দিক থেকে অপর্যাপ্ত।

শিশুর জন্য সেরা হলো মায়ের দুধ। এতে আছে পর্যাপ্ত পুষ্টি উপাদান, ভিটামিন এবং খনিজ। এ ছাড়া, মায়ের দুধে নানা অ্যান্টিবডি থাকে যা শিশুকে মারাত্মক সব অসুখ থেকে রক্ষা করে। বি শশীকর্ণ আরো বলেন, মায়ের দুধ শিশুর ডায়ারিয়ার ঝুকি কমায় এবং অ্যাকজিমার মতো এলার্জির হাত থেকে শিশুকে রক্ষা করে।

অনলাইন ডেস্ক