কাউন্টি লিমেরিক থেকে নির্বাচিত বাংলাদেশী কমিউনিটির প্রিয় মুখ ফিনাফল কাউন্সিলর জনাব আজাদ তালুকদার সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মসজিদসহ সকল প্রার্থনারস্থানসমূহ পুনরায় খুলে দেয়ার আহব্বান জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য লিমেরিকের বিভিন্ন গীর্জা ইতোমধ্যে প্রার্থনার জন্য পুনরায় খুলে দেয়া হয়েছে। জনাব আজাদ তালুকদার লিমেরিক কাউন্টি কাউন্সিল থেকে নির্বাচিত প্রথম কোন মুসলিম প্রতিনিধি তিনি গীর্জা খুলে দেয়ার পর অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ও খুলে দেয়ার জোড় দাবি জানান। তিনি আরও বলেন, "সবকিছু খুলে দিলেও আমাদের প্রধান অগ্রাধিকার হচ্ছে নিজেদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করা"

সিটি ওয়েস্ট কাউন্সিলর মনে করেন -এই দুঃসময়ে ধর্মপ্রাণ নাগরিকরা নিজ নিজ উপাসনালয়ে গিয়ে যখন সৃষ্টিকর্তার কাছে পরম শান্তির জন্য আশীর্বাদ করেন তখন আত্নার প্রশান্তি অনুভব করেন।

"মুসলিম জনসাধারণ এই মুহূর্তে হয়তো গণজামায়েত না হয়ে ব্যক্তিগতভাবে ঈমামের কাছ থেকে ধর্মীয় উপদেশ নিচ্ছেন। যদি মসজিদ খুলে দেয়া হয় তাহলে নির্দিষ্ট সংখ্যক ধর্মপ্রাণ মুসলমান জমায়েত হতে পারবেন, তবে "সর্বসাধারণের স্বাস্থ্য সুরক্ষা সবার আগে নিশ্চিত করতে হবে"। অনেক ধর্মপ্রাণ মুসলিম মাঝেমাঝে নিজেদের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে ঈমামের সাথে কথা বলে ধর্মীয় উপদেশ নিয়ে নিজেদের হালকা অনুভব করেন"

জনাব আজাদ তালুকদার সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে মসজিদ খুলে দেয়ায় আহব্বান তখনি জানালেন যখন লিমেরিকের খ্রিষ্টান ধর্মযাজক ব্রেন্ডান লেহী গীর্জায় উপাসনার কাজে আসা লোকজনকে স্বাস্থ্য সুরক্ষার ব্যাপারে সতর্ক করে দেন।

অনুবাদ করা হয়েছে লিমেরিক লিডার থেকে
ওবায়দুর রহমান রুহেল
বার্তা সম্পাদক